৫. কয়েকদিন ভালো থাকি তারপর আবার শয়তান প্রলুব্ধ করে

১। প্রথমত হতাশ হবেন না। আপনার এই যাত্রা কখনই সহজ হওয়ার কথা নয়। তবে যে এই যাত্রা ছেড়ে দেয় নিশ্চয়ই সে চূড়ান্ত হতভাগা। আপনি লেগে থাকুন। ইন শা আল্লাহ্‌ আপনি সফল হবেন। অবশ্যই কিছুটা হতাশা থাকা দরকার। কিন্তু এই হতাশা আপনাকে যেন এই জিনিস থেকে দূরে থাকার আরও অনুপ্রেরণা দেয়। হতাশা থেকে যেন আপনি শিক্ষা নিন। আর, অনুপ্রেরণা পাওয়ার জন্য এগুলো পড়ুন –
https://tinyurl.com/y5zh7goq
https://tinyurl.com/y5zh7goq

২। খারাপ সব কিছু জীবন থেকে শুধু বাদ দিলে হবে না। খারাপকে পরিবর্তন করতে হবে ভাল দ্বারা। আপনি গান বাজনা বদলে কুরআন তিলাওয়াত শুনুন/ করুন। বিনোদন পেপার বাদ দিয়ে বিভিন্ন বই পড়ুন, ইসলামিক সাহিত্য ও আছে। খারাপ/ মেয়ে বন্ধু বাদ দিয়ে দ্বীনী বন্ধু/ ভাই গড়ুন। এগুলো অবশ্যই করবেন। হতে পারে এগুলোর অভাবেই আপনি পিছলে যাচ্ছেন। তাই এই পরিবর্তনগুলি যদি না করে থাকেন, আজই শুরু করে দিন। পরকাল নিয়ে চিন্তা করুন, বই পড়ুন, লেকচার শুনুন। এই পোস্ট দেখুন- https://tinyurl.com/yxlhe9yj

৩। সফটওয়্যারের পাসওয়ার্ড আপনি নিজে দিবেন না। এটি পড়ুন – http://lostmodesty.com/2018/08/বিষে-বিষক্ষয়/

৪। ফেইসবুকে যদি আপনি খারাপ কন্টেন্ট ফলো করে থাকেন আগে সেগুলো বাদ দিন। মেয়ে, গ্রুপ, পেইজ, সেলিব্রিটি, হলিউড বা এ ধরনের কিছু। আপনি ফেইসবুকে ছবি বন্ধও ও করে রাখতে পারেন। আর, ইমান, আমল বাচানোর জন্য ফেইসবুক ডিলিট করা যদি একান্তই প্রয়োজন হয়ে পড়ে তাহলে আল্লাহ্‌র উপর তাওাক্কুল করে ডিলিট করে দিন। আরও অনেক উপায়ে আপনি ভাইদের সাহায্য নিতে পারবেন ইন শা আল্লাহ্‌।

৫। যেদিন মনে হবে পারছেন না, হচ্ছে না, শয়তান আজেবাজে চিন্তা মাথায় আনছে ওইদিন/ পরদিন রোজা রাখবেন। সপ্তাহে সোম, বৃহস্পতিবার – এ ২ দিন রোজা রাখুন।

৬। ব্যায়াম করুন। খেলাধুলা করুন।

৭। যে কারণে ট্রিগারড হন, সেটা আইডেন্টিফাই করুন। সে সময়, দিন আইডেন্টিফাই করুন। সেভাবে সতর্কতা অবলম্বন করুন।

৮। নিজেকে টার্গেট দিন যে এই কয়দিন পর্ন দেখবনা। প্রথম প্রথম দিন গনুন, তারপর বন্ধ করে দিন।  এই কয়দিন পর্ন দেখেননি, মাস্টারবেট করেননি এই হিসাব রাখবেন না। এগুলা মাথায় আনবেন না। আপনি তো আর সেই পথে ফিরে যাবেন না। তাহলে সেই পথের দূরত্ব কেন পরিমাপ করবেন।

৬. মুক্ত বাতাসের খোঁজে বইটা পড়েছি। কাজ হয়না।

– বইটা শুধু পড়লেই হবেনা । সে অনুসারে আমলও করতে হবে। কোন জিনিসটা আপনাকে পর্ন-মাস্টারবেশনে প্রলুব্ধ করছে সেই ট্রিগার গুলার লিস্ট করুন। সেগুলো থেকে দূরে থাকতে হবে।  ডায়েরি মেইন্টেইন করতে হবে। কাছের কোনো ভাই,বন্ধু বা এরকম কারো কাছ থেকে হেল্প নিতে হবে।

– পড়ুন- http://lostmodesty.com/2018/08/ফাঁদ-চতুর্থ-পর্ব/ , নীল কৃষ্ণগহ্বর

(উৎসাহ দেবেন যে ভাই আপনার উন্নতি হচ্ছে, চালিয়ে যান। একদিনে তো আর পারবেন না । ধীরে ধীরে আসক্তি থেকে মুক্তি পাবেন ইনশা আল্লাহ।) অবসর সময় ভালোমতো কাজে লাগাতে হবে । চোখের হেফাযত করতে হবে। আল্লাহ্‌র কাছে বেশি বেশি দু’আ করতে হবে। সূরা বাকারাহ সপ্তাহে একবার তিলাওয়াত করতে হবে। না পারলে তিলাওয়াত শুনবেন। প্রত্যেকবার মাস্টারবেট করার পর বা পর্ন দেখার পর ১০ রাকাত নফল নামায পড়বেন। আরো বেশিও হতে পারে। সাধ্যমতো দান খয়রাত করবেন।

এছাড়া ৪ নম্বর প্রশ্নের উত্তর থেকেও কিছু টিপস দিয়ে দিতে পারেন।

 

৭. ভবিষ্যত স্ত্রীকে নিয়ে ফ্যান্টাসিতে ভুগছি, বীর্যপাতও হয়ে যায়, ৪ মাস হস্তমৈথুন করছি না এখন আবার এই সমস্যা হচ্ছে। করণীয় কী?

ভাই, এটা শয়তানের অস্পষ্ট একটি ধোকা। এটা স্পষ্ট কবীরা গুনাহ এবং অন্তরের জেনা। এটা না ছাড়তে পারলে আপনার জন্য জাহান্নাম অনিবার্য হয়ে যাবে। শয়তান খুব চালাক। সে যখন দেখে, কোন বান্দা মাস্টারবেশন কিংবা পর্ণোগ্রাফি থেকে দূরে আছে, তখন সে ভাবায় যে তোমার ভবিষ্যৎ বউয়ের কথা চিন্তা করো। একদম পরহেজগার, হিজাবী একটা মেয়ে তোমার বউ হবে। তাকে নিয়েই তো ভাবছো, বাজে কিছু তো করছো না। এভাবে সে অন্তরের জেনার দিকে আমাদের ঠেলে দেয়। প্রিয় ভাই, এরকম হলে সাথে সাথে আল্লাহর কাছে শয়তান থেকে পানাহ( আউযুবিল্লাহিমিশ শাইতানি…..) চাইবেন। মৃত্যু, জাহান্নামের কথা স্মরণ করবেন। তারপরেও সমস্যা হলে ওযু করে দুই রাকাত নামাজ পড়বেন( আল্লাহ আমাদের তৌফিক দান করুন)। এগুলা করার পরে ফিজিক্যাল কিছু ব্যায়াম করতে পারেন, গোপনীয় জায়গা( রুম) থেকে বের হয়ে প্রকাশ্যে কোন ভাইয়ের সাথে কথা বলতে পারেন, রাস্তায় হাটতে পারেন কিংবা অন্য যেকোন কিছু করে ( বই পড়া, ওয়াজ শোনা) আপনার মাইন্ড কনভার্ট করতে পারেন। তাহলেই ইনশাআল্লাহ, এটা থেকে পরিত্রাণ পাবেন। শুধু ট্রিক দিয়ে হবে না ভাই, আল্লাহর সাহায্য খুবই খুবই প্রয়োজন।
পর্ন থেকে বেঁচে থাকার জন্য যেমন সতর্কতা অবলম্বন করেছিলেন, যেমনভাবে মুক্ত বাতাসের খোঁজে বইটা ব্যবহার করেছিলেন এক্ষেত্রেও সেটা করতে হবে ভাইয়া।

আর হ্যা, সুরা নূরের ৩০ নম্বর আয়াতের উচ্চারন, অর্থ, তাফসীর সহ মুখস্থ করে এটা বার বার পড়তে থাকবেন।( মেইনলি রাস্তা-ঘাট, ফেসবুক, ইউটিউব, ফোন, পোষ্টার, টিভি, যেকোন জায়গায় গায়রে মাহরাম মেয়ের দিকে দ্বিতীয় বার তাকাবেন না, পারলে প্রথম বার ও তাকাবেন না। খুবই গুরুত্বপূর্ণ এটা। ঐসময় শয়তান ওয়াসওয়াসা দিবে, তাকানোর জন্য, তখন মনের সাথে যুদ্ধ করবেন। যেকোন মূল্যে শয়তানকে হারাতে হবে)

আর প্রিয় ভাই, মনে রাখবেন, বিয়ের আগে কোন মেয়ের চিন্তা আপনার জন্য বৈধ নয়। ঐ সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করুন, এসব চিন্তা থেকে।
আর নিশ্চিন্ত থাকুন, আমাদের রব প্রতিজ্ঞা করেছেন, কেউ যদি আল্লাহর জন্য কোন কিছু ত্যাগ করে তাহলে তিনি তাকে এর চেয়ে উত্তম কিছু দান করবে।

চিন্তাভাবনা কীভাবে কন্ট্রোল করবেন জানতে পড়ুন- ‘ফাঁদ’ (চতুর্থ পর্ব  – https://bit.ly/2CPbF1s
আল্লাহ আমাদের হেদায়তের উপর অটল রাখুন। আমিন

 

৮. আমি ঘুমের মাঝে হস্থমৈথুন করি, নিজের অজান্তে। এটা যখন হয় শেষের দিকে আমি টের পাই। কিন্তু ততক্ষনে যা হবার হয়ে গেছে।পর্ন দেখা ছেড়েছি বাট এটা পারছি না।

 

ঘুমের মধ্যে বীর্য পাত অস্বাভাবিক কিছু না। এটা স্বপ্নদোষ বলেই মনে হচ্ছে। (স্বপ্নদোষের প্রশ্নের জন্য যে উত্তর দিয়েছিলেন সেটিই দিবেন)

– ঘুমানোর ঠিক আগে পানি খাবেন না, অন্তত ১ ঘন্টা আগে পানি খাবেন,
– ঘুমানোর আগে ভালোভাবে প্রসাব করে অযু করে নিবেন,
– ঢিলাঢালা প্যান্ট বা লুঙ্গি পরে ঘুমাবেন
– উপুড় হয়ে শুবেন না। ঘুমাতে যান ডান দিকে কাত হয়ে।

– পর্ন কোনোমতেই দেখা যাবেনা। অশ্লীল চিন্তা করা যাবেনা কোনোমতেই। চিন্তাভাবনা কীভাবে কন্ট্রোল করবেন জানতে পড়ুন- ‘ফাঁদ’ (চতুর্থ পর্ব  – https://bit.ly/2CPbF1s

 

আর অবশ্যই এই লিখার সমাধান ট্রাই করুন- https://ruqyahbd.org/blog/312/zina

প্রশ্ন থাকলে যোগাযোগ করতে পারেনঃ https://www.facebook.com/groups/ruqyahbd/

 

৯. লিংগ উত্তেজিত থাকলে মাঝেমাঝে এক প্রকার রস বের হয়। এইটা কি বীর্য? ফরজ গোসল করতে হবে?

এটাকে কামরস বা মযী বলে। ‘কামরস বা মযী’ সাদা স্বচ্ছ পিচ্ছিল পানি। যৌন উত্তেজনার সময় এটি বের হয়; যৌন চিন্তার ফলে কিংবা অন্য কোন কারণে। এটি বের হওয়ার সময় সুখানুভূতি হয় না এবং এটি বের হওয়ার পর যৌন নিস্তেজতা আসে না। এটি নাপাক, শরীরে লাগলে ধুয়ে ফেলা ফরয। কাপড়ে লাগলে ওই অংশটুকু ধুয়ে নিন। কামরস বের হলে ওজু ভেঙ্গে যাবে। কামরস বের হওয়ার কারণে গোসল ফরয হয় না। সোর্সঃ https://islamqa.info/bn/answers/99507

 

আমরা খুব ছোটো মানুষ। আমাদের লিখার ভুল ত্রুটি ধরিয়ে দিলে আমরা কৃতজ্ঞ থাকব ইনশা আল্লাহ্‌।  যেকোনো ধরণের পরামর্শ বা সাজেশন  হাইলি এপ্রিসিয়েটেড।

চলবে ইনশা আল্লাহ্‌ …

পড়ুন আগের পর্বগুলোঃ

ভেঙ্গে ফেলো এই কারাগার (প্রথম পর্ব) 

শেয়ার করুনঃ