বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম।
.
আমাদের অফিশিয়াল নাম (‘লস্টমডেস্টি’, ‘মুক্ত বাতাসের খোঁজে’ বা এরকম) ব্যবহার করে কাউকে কাউকে দেখা যাচ্ছে হস্তমৈথুনের পক্ষে প্রচারণা চালাতে। এদেরকে ইনবক্সে আমরা যতোটা সম্ভব বোঝানোর চেষ্টা করেছি। তারা খুব বাজে ভাষায় আমাদের আক্রমণ করেছে। আল্লাহ্‌ আমাদের এবং এই ভাইদের হেদায়াত দিক। ইসলাম বিকৃত করার হাত থেকে রক্ষা করুক। দ্বীনকে নিজের লালসা পূরণের হাতিয়ার হওয়া থেকে রক্ষা করুক।
.

সবচেয়ে বেশি কে ভালোবাসে আপনাকে এই দুনিয়ায়?

এই প্রশ্ন করলে সচরাচর যার মুখ ভেসে ওঠে তিনি হলেন আপনার মা, যার পেটে আপনি ছিলেন দীর্ঘ ৯ মাস। গায়ক অনেক আগেই গেয়েছে- এমন দরদী ভবে কেউ হবেনা আমার মা ছাড়া… তবে আরবের এক মানুষ আপনাকে মায়ের চাইতেও বেশি ভালোবাসতেন। আপনার জন্য বেশি দুশ্চিন্তা করতেন। নিজে নিষ্পাপ হয়েও রাত জেগে জেগে আপনার মুক্তির জন্য কান্নাকাটি করতেন। এই মানুষটি কে তা আর বলে দিতে হবেনা বোধহয়- মুহাম্মাদ ইবনে আবদুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)।
.
আমাদের জীবনকে আমরা যেন সুন্দর, সহজ স্মুথলি চালাতে পারি তার জন্য খুঁটিনাটি সবকিছুই তিনি আমাদের শিখিয়ে দিয়েছেন। আল্লাহ্‌ (সুবহানাহু ওয়া তা’আলা) উনার মাধ্যমে মানবজাতির সব যুগের, সব কালের সব সমস্যার সমাধান বাতলে দিয়েছেন।
.
পাশ্চাত্যের ছকে পরিচালিত এই ভোগবাদী সমাজে বিয়েকে অনেক কঠিন করে ফেলা হয়েছে। ৩০-৩২ বছর বয়স হয়ে যায় তারপরেও আমাদের ভাইবোনেরা বিয়ে করতে পারেন না। নারী পুরুষের অন্তরঙ্গতা এক ধরণের ক্ষুধার মতো। বয়স হলে ক্ষুধা লাগবেই। অন্তরঙ্গতার স্বাদ না পেলে ভয়াবহ দুঃসময় নেমে আসবে। প্রচন্ড কষ্ট হবে টগবগে, রক্ত গরম শরীরটাকে বেঁধে রাখতে।
.
এখন চিন্তা করুন, যেই রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) আপনাকে আপনার নিজের মায়ের চাইতেও বেশি ভালোবাসতেন সেই রাসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) কি আপনাকে এই ভয়াবহ অবস্থায় যেন না পড়তে হয় বা পড়লে কীভাবে মোকাবেলা করতে হবে সেটার পথ বলে দেননি? তিনি হলেন রহমাতুল্লীল আলামিন। মানবজাতির জন্য রহমত তিনি। তিনি অবশ্যই মুক্তির উপায় বলে দিয়েছেন। কী সেই উপায়?
.
চলুন যাওয়া যাক আব্দুল্লাহ্‌ বিন মাসউদ (রাদ্বিয়াল্লাহু আনহু) এর কাছে। তিনি আমাদের জানাচ্ছেন, ‘নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সাথে আমরা এমন কিছু যুবক ছিলাম যাদের কিছু ছিল না। তখন রাসূলুল্লাহ্‌ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন: হে যুবকেরা! তোমাদের মধ্যকার যার (বিয়ের খরচ বহন ও শারীরিক সামর্থ্য) রয়েছে সে যেন বিয়ে করে ফেলে। কেননা, তা তার দৃষ্টি নিম্নগামী রাখতে ও লজ্জাস্থানকে হেফাজত করায় সহায়ক হয়। আর যে বিবাহের সামর্থ্য রাখে না, সে যেন রোজা রাখে। কারণ তা যৌন উত্তেজনা প্রশমনকারী।” [সহীহ বুখারী (৫০৬৬)]
.
আলিমগন বলেন, এই হাদিস থেকে একদম দিনের আলোর মতো পরিষ্কার যে যে বিয়ে করতে অক্ষম হলে কষ্ট হওয়া সত্ত্বেও রাসূলুল্লাহ (সাঃ) তাকে রোযা রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। হস্তমৈথুন করার পরামর্শ দেননি। যদিও হস্তমৈথুনের প্রতি আগ্রহ বেশি থাকে, হস্তমৈথুন করা রোযা রাখার চেয়ে সহজ। এবং এটাতে কিছু মজাও পাওয়া যায়। কিন্তু তারপরেও তিনি (সাঃ) হস্তমৈথুনের অনুমতি দেননি।
.
ইবনে কাসির (রহঃ) বলেন: ইমাম শাফেয়ি এবং যারা তাঁর সাথে একমত পোষণ করেছেন তারা সবাই এ আয়াত দিয়ে হস্তমৈথুন হারাম হওয়ার পক্ষে দলিল দিয়েছেন। আয়াতটির ভাবানুবাদ হচ্ছে-
আর যারা নিজেদের যৌনাঙ্গকে হেফাযত করে। নিজেদের স্ত্রী বা মালিকানাভুক্ত দাসীগণ ছাড়া; এক্ষেত্রে (স্ত্রী ও দাসীর ক্ষেত্রে) অবশ্যই তারা নিন্দিত নয়। যারা এর বাইরে কিছু কামনা করবে তারাই সীমালঙ্ঘনকারী।” [সূরা মুমিনুন, আয়াত: ৫-৬]

(দাসী মানে ক্রীতদাসী। বর্তমান সময়ে বাসা-বাড়িতে যারা কাজ করেন তারা নন, তারা কর্মচারী। দাসপ্রথা ও ইসলামে এর অবস্থান জানতে পড়ুন- https://tinyurl.com/IslaveryI অথবা, https://islamqa.info/en/answers/13737)

ইমাম শাফেয়ি ‘নিকাহ অধ্যায়ে’ বলেন: ‘স্ত্রী বা দাসী ছাড়া অন্য সবার থেকে লজ্জাস্থান হেফাযত করা’ উল্লেখ করার মাধ্যমে স্ত্রী ও দাসী ছাড়া অন্য কেউ হারাম হওয়ার ব্যাপারে আয়াতটি সুস্পষ্ট। এরপরও আয়াতটিকে তাগিদ করতে গিয়ে আল্লাহ্‌ তাআলা বলেন (ভাবানুবাদ): “যারা এর বাইরে কিছু কামনা করবে তারাই সীমালঙ্ঘনকারী।” সুতরাং স্ত্রী বা দাসী ছাড়া অন্য কোন ক্ষেত্রে পুরুষাঙ্গ ব্যবহার করা বৈধ হবে না, হস্তমৈথুনও বৈধ হবে না। আল্লাহ্‌ই ভাল জানেন। [ইমাম শাফেয়ি রচিত ‘কিতাবুল উম্ম’]
.
কোন কোন আলেম এ আয়াত দিয়ে দলিল দেন: “যারা বিবাহে সক্ষম নয়, তারা যেন সংযম অবলম্বন করে যে পর্যন্ত না আল্লাহ নিজ অনুগ্রহে তাদেরকে অভাবমুক্ত করে দেন।” [সূরা নূর, আয়াত: ৩৩] এ আয়াতে সংযমের নির্দেশ দেয়ার দাবী হচ্ছে– অন্য সবকিছু থেকে ধৈর্য ধারণ করা। (https://islamqa.info/bn/answers/329/)
.
দক্ষিন আফ্রিকার মাদ্রাসা এরাবিয়া ইসলামিয়ার এক দীর্ঘ গবেষণা প্রবন্ধে আলিমগণ লিখেছেন- হস্তমৈথুন হারাম। চার মাযহাবের (হানাফি মালিকি,শাফেঈ, হাম্বলী) আলিমদের ঐক্যমত্য রয়েছে এর ওপর। সূরা মুমিনুনের ৫-৬ নম্বর আয়াতের ওপর ভিত্তি করে তাঁরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন। (https://tinyurl.com/y4ar8kyj)
.

অনেকেই আছে বিজ্ঞানের নানা রেফারেন্স টেনে হস্তমৈথুনকে উপকারি প্রমাণ করার চেষ্টা করে।


বর্তমান সময়ের পরাজিত মুসলিমদের মানসিকতা হলো ইসলামের বিধানকে সায়েন্সের কষ্টিপাথরে ঘষে দেখে। এটা মারাত্মক রকমের চিন্তাপরাধ। বিজ্ঞান চেইঞ্জ হয়ে যায় সময়ের সাথে সাথে, কিন্তু আল্লাহ্‌র দ্বীন কন্সট্যান্ট, অপরিবর্তনীয়। দুনিয়ার সবকিছু চেইঞ্জ হয়ে গেলেও আল্লাহ্‌র দ্বীন পরিবর্তনের কোনো সুযোগ নেই। কারো কোনো অধিকার নেই। এ কারণে দুনিয়ার সব বিজ্ঞানী সব ডাক্তারও যদি বলে হস্তমৈথুন শরীরের জন্য উপকারী, আমরা সেটা ছুঁড়ে ফেলে দিব। কারণ এই দাবী আল্লাহ্‌র দ্বীনের সাথে সাংঘর্ষিক। আল্লাহ্‌ (সুবঃ) এমন কিছুকে হারাম করতে পারেন না যেটা মানুষের জন্য উপকারী।
.
আলহামদুলিল্লাহ ! বিজ্ঞানের মাধ্যমেই প্রমানিত হয়েছে হস্তমৈথুন কতোটা ভয়ঙ্কর। বিস্তারিত আলোচনা আছে মুক্ত বাতাসের খোঁজে বইয়ে। বই কিনতে/ পিডিএফ পড়তে দেখুন- http://lostmodesty.com/muktobataserkhoje/
.
অথবা এই লিখাগুলাও পড়তে পারেনঃ

– চোরাবালি (১-৮); (লিখাগুলো পাবেন আমাদের ওয়েবসাইটে। http://lostmodesty.com/at_a_glance/পেজে_সেকশন ২_’বিজ্ঞান তো বলছে মাস্টারবেশন কোন সমস্যা না, তাহলে?’ দেখুন)

– মাস্টারবেশন কী মাসলগ্রোথ এবং এথলেটিক পারফরম্যান্সের ক্ষতি করে? (https://bit.ly/2NzycUa)
.
কর্নেল ইউনিভার্সিটির ইউরোলজি এবং রিপ্রোডাক্টিভ মেডিসিনের ক্লিনিকাল প্রফেসর ড. হ্যারি ফিশ হস্তমৈথুনের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে বলেন, “ঘন ঘন হস্তমৈথুনের কারণে একজন মানুষ লিঙ্গোত্থানজনিত (erection) সমস্যায় ভুগতে শুরু করবে। হস্তমৈথুনের সাথে সাথে পর্নোগ্রাফি দেখতে থাকলে একসময় যৌনমিলনের ক্ষমতাই সে হারিয়ে ফেলবে।” (http://bit.ly/2DjTM6V)
.
দেখুন হস্তমৈথুনকে মূলধারায় নিয়ে আসার পেছনে বিশাল এক চক্রান্ত আছে। গত শতাব্দীর ৩০-৪০ এর দশকেও পাশ্চাত্য হস্তমৈথুনকে হারাম মনে করতো। পরে এক পাগলা,লম্পট, বিকৃতমানসিকতার ভন্ড প্রতারক আলফ্রেড কিনসি হস্তমৈথুনকে মূলস্রোতে নিয়ে আসে। তাকে সর্বাত্মকভাবে সহায়তা করে কুখ্যাত রকফেলার ইন্সটিটিউট, সাইকাস। এই লিখাতে (http://lostmodesty.com/mitthershikol/) বিস্তারিত আলোচনা আছে। অবশ্যই পড়ার অনুরোধ রইলো।
.
একটা কথা বলা প্রয়োজন মনে করছি, পাশ্চাত্য ইসলামের সাথে একটা সামগ্রিক যুদ্ধে (Total War) এ লিপ্ত। তারা যেকোনো মূল্যে চাইবে ইসলামকে আঘাত করতে। কিছুদিন আগে দাড়ি নিয়ে বিবিসির রিপোর্ট আপনারা দেখেছেন। এরা সমকামিতাকেও প্রমোট করে চলছে, যার বিন্দুমাত্র কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। এ থেকেই বোঝা যায় যে বৈজ্ঞানিক ভিত্তি থাকলেই পাশ্চাত্যের সেটাপে চলা কোনো জিনিসকে হালাল করা হয়না, বরং পাশ্চাত্যের যেটা ভালো মনে হয় সেটাকেই হালাল করা হয়। বৈজ্ঞানিক ভিত্তি থাকুক বা না থাকুক। মুসলিম যুবকদের তাঁদের দ্বীন থেকে ফিরিয়ে রাখার জন্য, সৎ কাজের আদেশ এবং অসৎ কাজের নিষেধ এর ওপর আমল করা থেকে দূরে রাখার জন্য, তাঁদের চরিত্রকে কলুষিত করার জন্য হস্তমৈথুন খুবই কার্যকর এক হাতিয়ার। সেই সাথে হস্তমৈথুনের আর পাশ্চাত্যের অর্থনৈতিকভাবে ফুলে ফেঁপে ওঠার খেলাতো রয়েছেই। এই ব্যাপারগুলো বোঝার জন্য অনুরোধ করছি এই বইগুলো পড়ার-
.
i) চিন্তাপরাধ (www.rokomari.com/book/185621/)

ii) Sex Education as Bullying (https://web.archive.org/web/20180126212439/http://www.drjudithreisman.com/archives/2015/10/sex_education_a.html)
.
এই ভিডিও অবশ্যই দেখবেন- The War on Children: The Comprehensive Sexuality Education Agenda (http://bit.ly/2AxY487)
.
আবারো মনে করিয়ে দেই, লস্টমডেস্টি সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক এবং অলাভজনক একটি গ্রুপ। কোন নির্দিষ্ট দল/ গোষ্ঠী/ সংগঠনকে নয়, বরং আল্লাহ্‌কে সন্তুষ্ট করার উদ্দেশ্যে সকল প্রকার অশ্লীলতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য আমরা কাজ করি। কোন ধরনের মানসিক/শারীরিক হয়রানী, চাঁদাবাজি, ফ্রি-মিক্সিং, অশ্লীলতা, প্রতারণা, কপটতা, অপরাধ আমরা সমর্থন বা প্রচার করি না এবং কোন ব্যক্তি/ সংগঠন থেকে অর্থ সংগ্রহ করি না। আমাদের অফিশিয়াল পেইজ, ব্লগ, বই ও লিফলেটে যে আর্টিকেল, ছবি, ভিডিও, অডিও, স্লাইড আছে কেবলমাত্র সেসবের প্রতিই আমরা দায়বদ্ধ। যে কোন ব্যক্তি/ সংগঠন চাইলে স্বেচ্ছায় কোনরূপ মডিফিকেশন ছাড়া আমাদের এ কন্টেন্টগুলো ব্যবহার করতে পারেন বা এন্টি পর্নোগ্রাফি ক্যাম্পেইন করতে পারেন। এক্ষেত্রে তাদের কাজের দায়ভার আমাদের উপর বর্তাবে না। আমাদের কন্টেন্টে কোরআন-সুন্নাহ-সীরাহ সর্বোপরি ইসলামের কথা প্রত্যক্ষ/ পরোক্ষ ভাবে আসে ও আসবে ইনশাআল্লাহ্‌। এক্ষেত্রে সর্বদা অথেন্টিক সোর্স থেকে রেফারেন্স নেয়া হয়। কোন কন্টেন্ট নিয়ে কারো উদ্দেশ্যমূলকভাবে মিথ্যা রটনা কাম্য নয়। লস্ট মডেস্টির কন্টেন্টের সাথে কোন নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা দলের মিল খুঁজে পেলে তা একান্তই কাকতালীয়। আমাদের অফিসিয়াল সোশ্যাল সাইটগুলোর লিংক পাবেন এখানে- http://lostmodesty.com/contact/। এগুলো ছাড়া অন্য কোনো সোশ্যাল সাইটের প্রচার মিডিয়ার সঙ্গে আমাদের কোনো সম্পর্ক নেই। তাঁদের কাজের দায়ভার আমাদের ওপর বর্তাবে না।
.
যেসব ভাইয়েরা অনুমতি ছাড়া আমাদের নাম ব্যবহার করছেন তাঁরা অপরাধ করছেন। যারা আমাদের নাম ব্যবহার করে হস্তমৈথুনের পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন তারা অপরাধের ওপর আবার অপরাধ করছেন। আল্লাহ্‌ সুবহানু তা’আলা আমাদের ভুলগুলো শুধরে নেবার তৌফিক নিক। এলাকাভিত্তিক লস্টমডেস্টির সাপোরটিং টিম পেইজ খুলতে চাইলে অবশ্যই আমাদের সঙ্গে কথা বলে এই লিস্টে নাম তুলে নিবেন-http://lostmodesty.com/volunteer-list/
.
আল্লাহ্‌ সুবহানুতা’আলা আমাদেরকে ফিতনাহ’র সম্মুখীন হওয়া থেকে রক্ষা করুক। দরুদ ও সালাম বর্ষিত হোক নবী ও রাসূলগণের শ্রেষ্ঠ হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের প্রতি, তাঁর পরিবার পরিজন ও পূতপবিত্র সাহাবায়ে কেরামের প্রতি।
.
আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ।

– লস্টমডেস্টি

শেয়ার করুনঃ