লিফলেট বিতরণ করার কথা মাথাতে আসলে প্রথমেই যে ছবিটা চোখের সামনে ভেসে ওঠে সেটা হচ্ছে, একজন, মানুষের ভীড়ে জোর করে হাতে হাতে লিফলেট গুঁজে দিচ্ছে, আর আম জনতা একবার চোখ বুলিয়ে মাটিতে ফেলে দিচ্ছে। অনেক সময় চোখ বুলানোও হয়ে ওঠেনা । লিফলেট হাতে পাবার পর সরাসরি মাটিতে স্থান পায়। আমরা এই জিনিসটা নিয়েই ভয় পাচ্ছি। টাকা খরচ করে লিফলেট বানিয়ে, কষ্ট করে আম জনতার নিকট পৌঁছানোর পর সেটার পরিণতি যেন এমন না হয়। অনেকের সাথে কথা বলে, চিন্তা করে আমরা বোঝার চেষ্টা করেছি কীভাবে লিফলেট বিতরণ করলে কম পরিশ্রমে,কম খরচে ম্যাক্সিম্যাম টার্গেটে পাবলিকের কাছে পৌঁছানো যায়। এখানে আমরা সেগুলো নিয়ে কিছুটা আলোচনা করব ইনশা আল্লাহ্‌। আপনারা আপনাদের মতামত জানাতে পারেন। এবং সে অনুসারে মাঠে কাজ করতে পারেন।

.

১) প্রিন্ট করাবেন কীভাবেঃ

লিফলেটের সফটকপি ডাউনলোড করে নিজে প্রিন্ট করতে পারেন। ডাউনলোড লিঙ্ক- https://tinyurl.com/LMleaflet। এখানে শুধুমাত্র ছাত্রছাত্রীদের (১৫+) ও অভিভাবকদের মধ্যে বিতরণযোগ্য লিফলেটের সফটকপি দেওয়া আছে। ১০+ বছর বয়সীদের মধ্যে বিতরণযোগ্য লিফলেটের ডিজাইন আমরা খুব শীঘ্রই নিয়ে আসতে পারব ইনশা আল্লাহ্‌। লিঙ্কে গেলে দেখবেন PDF, EPS দুই ধরনের ফরম্যাট আছে। দোকানে প্রিন্ট করতে নিয়ে গেলে সাধারণত EPS ফরম্যাট চায়। আপনি দুটোই নিয়ে যাবেন। ওরা যেটা চায় দিতে পারবেন। ফটোকপি অথবা প্রেস থেকে যদি অনেক কপি করাতে চান (৫০০+) তাহলে প্রেস থেকে করালে ভালো । ফটোকপির দোকানগুলো থেকেও করাতে পারেন। প্রেস এবং ফটোকপি মেশিন আছে এমন ভাইদের সহযোগিতা এখানে একান্তভাবে কাম্য। আপনারা আল্লাহর ওয়াস্তে এগিয়ে আসুন। দ্বীনের কাজে সাধ্যমতো এগিয়ে আসুন। আপনার সামান্য সহযোগিতা হয়তো অসংখ্য তরুণ যুবকের জীবন রক্ষা করবে।

নিজে প্রেসে গিয়ে লিফলেট প্রিন্টের ঝামেলা এড়াতে চাইলে জাস্ট নক দিন রজ্জু / সুকুন.শপ / TazkiyahLife পেইজে। কালার এবং কাগজের কোয়ালিটির ওপর ভিত্তি করে লিফলেটের দাম পারপিস ৮০ পয়সা থেকে শুরু করে ২ টাকা পর্যন্ত হতে পারে।
.
নিজের এলাকায় ক্যাম্পেইন শুরু করার আগে অবশ্যই দেখে নিন এলাকাভিত্তিক ভলান্টিয়ার লিস্ট

আর অবশ্যই পড়ে নিন এই লিখাটি- http://lostmodesty.com/alormichil/

.

২) কীভাবে বিতরণ করবেনঃ

রাস্তাঘাটে দাঁড়িয়ে, সাধারণ পথচারীদের, মসজিদের বাহিরে দাঁড়িয়ে বা বাজারে সবার হাতে হাতে লিফলেট ধরিয়ে দেওয়াকে আমরা তীব্রভাবে নিরুৎসাহিত করছি। এভাবে লিফলেট দিলে বেশিরভাগ মানুষই সেটা না পড়ে ফেলে দেয়। তাহলে কীভাবে বিতরণ করবেন?
.
আপনার নিজের স্কুল বা কলেজে যান। প্রিয় স্যারের সঙ্গে কথা বলুন। তাঁকে পরিস্থিতি বোঝান। তিনি বুঝবেন ইনশা আল্লাহ্‌। তারপর ক্লাসরুমে গিয়ে ছোটভাইদের হাতে হাতে লিফলেট দিন। চাইলে দু’এক কথায় পর্নোগ্রাফির ভয়াবহতা বোঝান। এটা খুবই ইফেক্টিভ হবে ইনশা আল্লাহ্‌। আমার স্কুলে এভাবে একজন ভাই এসেছিলেন। এবং আমি তাঁকে দেখে খুব প্রভাবিত হয়েছিলাম।
.
এভাবে না পারলে, সুযোগ না থাকলে, স্কুল/কলেজের গেটে দাঁড়িয়ে দিতে পারেন। খুব বেশি তাড়াহুড়া না করে অল্প অল্প করে দিলেন। দেওয়ার সময় অনুরোধ করলেন যে যেন সে এটা পড়ে, ফেলে না দেয়। শয়ে শয়ে কপি বিতরণ করাটা আপনার উদ্দেশ্য নয়, বরং আপনার উদ্দেশ্য হচ্ছে মানুষজন যেন এটা পড়ে উপকৃত হয়।
.
স্কুল,কলেজ, ভার্সিটি পড়ুয়া ছোটভাইয়ের হাতে ধরিয়ে দিয়ে বলতে পারেন যে সে যেন তার বন্ধুদের মাঝে এগুলো বিতরণ করে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বিতরণ করতে চাইলে আমরা বলব সেই প্রতিষ্ঠানের অনুমতি নিতে। চাইলে কোচিং সেন্টারেও যেতে পারেন। বিকেল বেলার খেলার মাঠ আরেকটা ভালো জায়গা।
.
ভার্সিটির হলে বা হোস্টেলে থাকলে রুমে রুমে গিয়ে এক কপি করে দিতে পারেন। নিজে যেতে না পারলে সকালবেলা রুমে রুমে যিনি পত্রিকা দেন, তাঁকে ধরুন। দরকার হলে উনার মোবাইলে ফ্লেক্সি দেওয়ার দশবিশ টাকা দিন। উনি পত্রিকার সাথে সাথে সবার রুমে লিফলেটের একটা কপি পৌঁছিয়ে দিবেন।
.
দূরপাল্লার ট্রেনগুলো লিফলেট বিতরণের আরেকটি আদর্শ জায়গা। মানুষজনের করার কিছু থাকেনা। বসে বসে ঘুমায়, মোবাইল টিপে, গল্প করে। উনাদের হাতে লিফলেট ধরিয়ে দিন। দেখবেন উনারা আপনার লিফলেট পড়ে ভাজি ভাজি করে ফেলেছেন ।
.
বাজারের প্রত্যেক দোকানীকে এক কপি করে দিন। ব্যবসার ফাঁকে ফাঁকে পড়বেন। চায়ের স্টলে অলস আড্ডা দেওয়া মানুষগুলোর হাতে লিফলেট ধরিয়ে দিন। ফুসকা, ঝালমুড়ির দোকানে, ফাস্টফুড আর রেস্টুরেন্টগুলোতে, জীমে,বইয়ের দোকানগুলোতে, স্টেশনারির দোকানগুলোতে, ফটোকপি, ফ্লেক্সিলোডের দোকান, দর্জির দোকানগুলোতে বেশ কয়েককপি লিফলেট দিয়ে রাখুন। এই জায়গাগুলোতে তরুন,যুবকদের অনেক আনাগোণা। সহজেই ওদের হাতে পৌঁছে যাবে লিফলেট।
.
লিফলেট বিতরণ করার সময় অবশ্যই ছবি তুলবেন, ভিডিও করবেন, ফেসবুক লাইভে যাবেন । এর ফলে পর্নোগ্রাফির বিরুদ্ধে ক্যাম্পেইন আরো গতিশীল হবে ইনশা আল্লাহ। ছবি এবং ভিডিও অবশ্যই আমাদের ইনবক্স করবেন। লাইভে যাওয়ার আগে আমাদের জানাবেন। আমরা শেয়ার দিয়ে রাখব। এই কাজগুলো দেখে অসংখ্য ভাই অনুপ্রাণিত হবেন আল্লাহ চাইলে। নীল এই দানবের বিরুদ্ধে আমাদের যুদ্ধে তা হবে এক বিশাল সাফল্য ইনশা আল্লাহ্‌।
.
এই হলো লিফলেট বিতরণ প্রসঙ্গে আমাদের টিপস। আপনারা মাঠে নামলেই বুঝতে পারবেন কীভাবে আরো ভালো মতো কাজ করা যায়। আপনাদের যে কোনো পরামর্শ হাইলি এপ্রিসিয়েটেড।

শেয়ার করুনঃ