ছেলেটির ভালো লাগতো মিথিলাকে, আর মেয়েটির তাহসানকে।

ছেলেটি বাথরুমে গুনগুন করে গাইতো আলো আলো আমি কখনো খুঁজে পাবোনা….

মেয়েটি রোজ সন্ধ্যায় চুল বাধার সময় গাইতো বিন্দু আমি, তুমি আমায় ঘিরে…..

দুজনেরই পছন্দের দম্পতি ছিল তাহসান- মিথিলা।

ছেলেটির একা থাকতে ভালো লাগতো। খোলা আকাশের নিচে শুয়ে শুয়ে তারা গুনতো আকাশের।

মেয়েটিও একা একা থাকতে ভালোবাসতো। অন্ধকার ঘরে শুয়ে থাকতো একা।

গণিত কিছুই বুঝতো না মেয়েটি। মেডিকেলে পড়তে গিয়েছিল তাই। ছেলেটি ছিল অঙ্কের ওস্তাদ। শখ করে পড়তে গিয়েছিল ইঞ্জিনিয়ারিং।

ছেলেটি ছিল লাজুক।
অনেক মেয়েকে ভালো লাগলেও মুখ ফুটে বলেনি কাউকে।
মেয়েটিও ।

ছেলেটি ভাবতো মনের মানুষটার মাথায় থাকবে সবুজ ওড়না। চোখ থাকবে লজ্জায় আনত।
মেয়েটি ভাবতো মনের মানুষটা ভালোবাসবে তার ঘোরলাগা কালো দু’চোখ দুচোখ।
একদিন দেখা হয়ে গেল তাদের ।

মেয়েটির মাথায় ছিল সবুজ ওড়না। চোখ দুটো লজ্জায় নামানো। ঠিক ছেলেটি যেমন চেয়েছিল।

ছেলেটির চোখ মুখে ছিল মুগ্ধতা আর বিস্ময়। বুকে ছিল সুখের মতো ব্যাথা। ঠিক মেয়েটি যেমন চেয়েছিল।

ইনবক্সে শুরু হলো কথা চালাচালি।

ছেলেটি শরতের এক বিকেলে মেয়েটিকে বললো তোমার জন্য দুরন্ত ষাঁড়ের চোখে বাঁধতে পারি লাল ফিতে,সারা পৃথিবী তন্ন তন্ন করে খুঁজে আনতে পারি ১০৮ টি নীলপদ্ম।

মেয়েটি শুধু হেসেছিল।
বুকে কাঁপন উঠেছিল ছেলেটির।

তারপর?

তারপর শীতল বাতাস বইতে শুরু করলো।
ভালোবাসা জমে মেঘ করে আসলো।

অঝোর ধারায় নামলো বৃষ্টি।
প্রেমের।

দিন যেতে থাকলো।
বদলে যেতে থাকলো দিন।

ছেলেটির অন্তর কেন জানি খাঁ খাঁ করতো। অশান্তি অশান্তি লাগতো সবসময়।

ছেলেটি একদিন জানলো এভাবে প্রেম করা হারাম।

ছেলেটি একদিন বুঝলো হারাম থেকে, আল্লাহর আইন অমান্য করে শান্তি পাওয়া যায় না কখনো।

মনের সঙ্গে কয়েকদিন যুদ্ধ করলো ছেলেটি। তারপর মেয়েটিকে জানালো।

মেয়েটির দুচোখে প্লাবণ নামলো।

ছেলেটি তবুও সরে গেল দূরে।

মেয়েটির বিয়ে হয়ে গেল ছয় মাস পরে।
তারপরে তার কি হল আমরা তা আর জানি না।

এদিকে ছেলেটির জীবনে এলো আমূল পরিবর্তন।

লুকিয়ে লুকিয়ে সলাতে কাঁদে সে।
খাঁ খাঁ করা বুকটা ভরে যায় অনাবিল প্রশান্তিতে।

ছেলেটি আজো খোলা আকাশের নিচে শুয়ে থাকে। চেয়ে থাকে শত সহস্র আলোক বর্ষ দূরের পুরোনো সেই নক্ষত্রের দিকে।

ছেলেটি আজো ভাবে একজনের কথা, আল্লাহ (সুবঃ) যাকে বানিয়েছেন বানানোর মতো করেই, প্রবাল ও পদ্মরাগ সদৃশ……. মাথায় সবুজ ওড়না, লজ্জায় আনত দুচোখ, দাঁড়িয়ে আছে আকাশের ওপারের লাল নীল মনিমুক্তো খচিত এক বাড়ির সামনে…

চিরদিনের সঙ্গী হবে বলে।
চোখ শীতল করবে বলে।

#আল্লাহর_কাছে_আসার_গল্প

শেয়ার করুনঃ